গত ২৪ ঘণ্টায় গাজায় অন্তত ৬৩ জন নিহত হয়েছেন | ইসরায়েলি হামলায় ১ মাসে ৪০০০ এর বেশি ফিলিস্তিনি শিশু নিহত | এক মাসেরও কম সময়ে ১0,000 ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে ইসরাইল | পুলিশের সঙ্গে বাংলাদেশের পোশাক শ্রমিকদের সংঘর্ষ | গণতন্ত্রের সংজ্ঞা দেশে দেশে পরিবর্তিত হয় – শেখ হাসিনা | গাজা যুদ্ধ অঞ্চলে আশ্রয়কেন্দ্রে ইসরায়েলি হামলায় একাধিক বেসামরিক লোক নিহত হয়েছে | মিসেস সায়মা ওয়াজেদ ডাব্লিউএইচও এর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের নেতৃত্বে মনোনীত হয়েছেন | গাজা এবং লেবাননে সাদা ফসফরাস ব্যবহৃত করেছে ইসরায়েল | বিক্ষোভে পুলিশ সদস্যের মৃত্যুর ঘটনায় বিরোধীদলের কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে – বাংলাদেশ পুলিশ | বাংলাদেশে ট্রেনের সংঘর্ষে ১৭ জন নিহত, আহত অনেক | সোশাল মিডিয়া এবং সাধারন মানূষের বোকামি | কেন গুগল ম্যাপ ফিলিস্তিন দেখায় না | ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধ লাইভ: গাজা হাসপাতালে ‘গণহত্যা’ ৫০০ জনকে হত্যা করেছে ইসরাইল | গাজায় ইসরায়েলি হামলায় ১,৪১৭ জন নিহতের মধ্যে ৪৪৭ শিশু এবং ২৪৮ জন নারী | হিজবুল্লাহ হামাসের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী। তারা কি ইসরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধে যোগ দেবে? | গাজাকে ধ্বংসস্তুপে পরিণত করার অঙ্গীকার নেতানিয়াহুর | হার্ভার্ডের শিক্ষার্থীরা ইসরায়েল-গাজা যুদ্ধের জন্য ‘বর্ণবাদী শাসনকে’ দোষারোপ করেছে, প্রাক্তন ছাত্রদের প্রতিক্রিয়া | জিম্বাবুয়েতে স্বর্ণ খনি ধসে অন্তত ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে, উদ্ধার তৎপরতা অব্যাহত | সেল ফোনের বিকিরণ এবং পুরুষদের শুক্রাণুর হ্রাস | আফগান ভূমিকম্পে ২০৫৩ জন নিহত হয়েছে, তালেবান বলেছে, মৃতের সংখ্যা বেড়েছে | হামাসের হামলার পর দ্বিতীয় দিনের মতো যুদ্ধের ক্ষোভ হিসেবে গাজায় যুদ্ধ ঘোষণা ও বোমাবর্ষণ করেছে ইসরাইল | পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য রাশিয়া থেকে প্রথম ইউরেনিয়াম চালান পেল বাংলাদেশ | বাংলাদেশের রাজনীতিবিদ ও আইন প্রয়োগকারী কর্মকর্তাদের ওপর ভিসা বিধিনিষেধের পলিসি বাস্তবায়ন শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র | হরদীপ সিং নিজ্জার হত্যায় ভারতের সংশ্লিষ্টতার তদন্তে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করেছে কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্র | যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা সম্প্রতি বাংলাদেশের বিমানবাহিনী প্রধান হান্নানকে ভিসা দিতে অস্বীকার করেছে |

নরেন্দ্র মোদির এবং গুজরাট গণহত্যা বিতর্ক

2002-এর গুজরাট গণহত্যা ভারতীয় ইতিহাসে একটি অন্ধকার এবং বিতর্কিত অধ্যায় হিসাবে রয়ে গেছে, যা সাম্প্রদায়িক সহিংসতা এবং সরকারী জড়িত থাকার অভিযোগ দ্বারা চিহ্নিত। এই বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন নরেন্দ্র মোদি, যিনি মর্মান্তিক ঘটনার সময় ভারতের গুজরাট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। এই নিবন্ধটি গুজরাট গণহত্যা এবং নরেন্দ্র মোদির সাথে এর যোগসূত্রের অন্বেষণ করে, যিনি পরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন।

গুজরাট গণহত্যা: একটি ট্র্যাজিক পর্ব

ফেব্রুয়ারী 2002 সালে, গুজরাট রাজ্যটি ভয়ঙ্কর সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় আচ্ছন্ন ছিল, প্রাথমিকভাবে মুসলিম সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে লক্ষ্য করে। গোধরায় হিন্দু তীর্থযাত্রীদের বহনকারী একটি ট্রেনে আগুন লাগার পর সহিংসতা শুরু হয়, যার ফলে বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়। পরবর্তী দাঙ্গা এবং প্রতিশোধমূলক আক্রমণে এক হাজারেরও বেশি লোক নিহত হয়, যাদের অধিকাংশই ছিল মুসলিম, এবং আরও হাজার হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত এবং আঘাতপ্রাপ্ত হয়।

জটিলতার অভিযোগ

সমালোচক এবং মানবাধিকার সংস্থাগুলি দীর্ঘদিন ধরে অভিযোগ করেছে যে মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে গুজরাট সরকার সহিংসতার কার্যকরভাবে প্রতিক্রিয়া জানাতে ব্যর্থ হয়েছে এবং মুসলিমদের উপর হামলার সাথে জড়িত থাকতে পারে। তারা যুক্তি দেয় যে সরকার সহিংসতা প্রশমিত করতে বা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে পর্যাপ্ত সুরক্ষা দিতে যথেষ্ট কাজ করেনি। এই অভিযোগগুলি সংকটের সময় মোদির ভূমিকা এবং দায়িত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে।

আইনি প্রক্রিয়া এবং বিতর্ক

গুজরাট গণহত্যার পরে, মানবাধিকার সংস্থা এবং সরকার-নিযুক্ত কমিশনগুলি সহ বেশ কয়েকটি তদন্ত শুরু হয়েছিল। এই তদন্তগুলি বিভিন্ন সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে, কিছু স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে জড়িত করে এবং অন্যরা সরাসরি জড়িত থেকে তাদের অব্যাহতি দেয়। বিষয়টি ভারতীয় আদালতেও পৌঁছেছিল, যেখানে সহিংসতার সময় মোদিকে তার কর্ম সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল।

2012 সালে, ভারতের সুপ্রিম কোর্ট কর্তৃক নিযুক্ত একটি বিশেষ তদন্ত দল (SIT) বিচারযোগ্য প্রমাণের অভাব উল্লেখ করে নরেন্দ্র মোদিকে সহিংসতায় সরাসরি জড়িত থাকার বিষয়ে সাফ করে। যাইহোক, 2002 এর ঘটনাগুলিতে তার ভূমিকাকে ঘিরে বিতর্ক অব্যাহত রয়েছে।

রাজনৈতিক আরোহণ এবং আন্তর্জাতিক প্রতিক্রিয়া

বিতর্কের মেঘ থাকা সত্ত্বেও, নরেন্দ্র মোদির রাজনৈতিক ক্যারিয়ার একটি অসাধারণ উত্থান দেখেছে। তিনি টানা তিন মেয়াদে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী হন এবং 2014 সালে তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তার মেয়াদ উল্লেখযোগ্য নীতিগত উদ্যোগ এবং অর্থনৈতিক সংস্কার দ্বারা চিহ্নিত হয়েছে, কিন্তু গুজরাট গণহত্যা তার উত্তরাধিকারের উপর ছায়া ফেলেছে।

আন্তর্জাতিকভাবে, মোদির উত্থান বিশ্ব নেতাদের তার সাথে যুক্ত হওয়া উচিত নাকি তার অতীত নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা উচিত তা নিয়ে বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। কিছু জাতি এবং সংস্থা মানবাধিকারের উদ্বেগের কারণে তার উপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে, অন্যরা তার সাথে একটি প্রধান বিশ্ব অর্থনীতির নেতা হিসাবে যুক্ত হতে বেছে নিয়েছে।

উপসংহার

গুজরাট গণহত্যা ভারতের ইতিহাসে একটি বেদনাদায়ক এবং বিতর্কিত অধ্যায় রয়ে গেছে। 2002 সালের ঘটনাগুলিতে সরকারের জড়িত থাকার অভিযোগ এবং নরেন্দ্র মোদির ভূমিকা ভারতে এবং আন্তর্জাতিক উভয় ক্ষেত্রেই বিতর্কের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। যদিও মোদির রাজনৈতিক কর্মজীবন অনেক উচ্চতায় পৌঁছেছে, গুজরাট গণহত্যার স্মৃতি তার নেতৃত্বের উপলব্ধিগুলিকে গঠন করে চলেছে এবং ভারতীয় রাজনীতি ও মানবাধিকারের বৃহত্তর প্রেক্ষাপটে আলোচনা ও উদ্বেগের বিষয় হয়ে আছে।