কি হবে ১০০০ কোটি বিলিয়ন বছর পরে ?

মানব জাতির ভবিষ্যত কি ? আর আমাদের অতিপ্রিয় এই পৃথিবীর ভবিষ্যতই বা কি ? অনেক গবেষণার পর বিজ্ঞানীরা বের করেছেন কিছু অনিবার্য নিয়তি যা আসবে একটার পর একটা, এক হাজার বছর, দশ লাখ বছর এবং স্বর্বোচ্চ দশ কুইন্টিলিয়ন বছর ধরে । আসুন দেখি আমাদের জন্য সামনে কি অপেক্ষা করছে ।

কি হবে ১০০০ কোটি বিলিয়ন বছর পরে ?

  • এখন থেকে এক হাজার বছর পরে , ভাষার অতিদ্রুত পরিবর্তনের কারণে বর্তমানে প্রচলিত ভাষাগুলোর কোনটিরই একটি বর্ণও বেচে থাকবেনা ।
  • এছাড়া গামা স্যাফেই প্রতিস্থাপিত করবে পোলারিস কে, এর অর্থ পৃথিবীর তে দেখা যাবে নতুন একটি নর্থ স্টারের ।
  • এখন থেকে দূ হাজার বছর পরে , বিশ্বের আবহাওয়ার উষ্ণতা চরমভাবে বৃদ্ধির কারনে হিমবাহ পুরোপুরি গলে যাবে । গ্রিনল্যান্ডের সব বরফও গলে যাবে এবং সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা বেড়ে ৬ মিটার উচু হয়ে যাবে ।
  • আপনি কি জানের ৫১২৫ সালে শেষ হবে মায়ান ক্যালেন্ডার ? এবং মায়ানদের বিশ্বাস অনুযায়ী সেই দিনটি হলো সবকিছুর শেষ, এক কথায় রোজ কেয়ামত !

  • তবে মানবসভ্যতা যদি ৫১২৫ এ শেষ না হয় তবে, আজ থেকে ২০ হাজার বছর পরে চেরনোবিল অবশেষে পুরোপুরি তেজস্ক্রিয়তা মুক্ত ও মানুষের জন্য নিরাপদ হবে ।

  • আজ থেকে ৫০ হাজার বছর পরে নায়াগ্রা জলপ্রপাতের অস্তিত্ব শেষ হয়ে যাবে ।
  • ১০০ হাজার বছর পরে আপনার ম্যাকবুক এর ভেতরে অবস্থিত টাইটেনিয়াম ক্ষয় হতে শুরু করবে। সম্ভবত অতি বৃহৎ আগ্নেয়গিরি বা  উল্কা পৃথিবীতে আঘাত হানবে । এছাড়া আকাশ এর নক্ষত্র ও সবকিছুই পুরোপুরি পরিবর্তিত দেখাবে গ্যালাক্সি দিয়া পৃথিবীর গতিশীল অবস্থার কারণে ।
  • ১ মিলিয়ন বছরের মাথায় মানুষের তৈরিকৃত সকল কাচজাতীয় পদার্থ ভঙ্গুর হয়ে যাবে । পাথরের তৈরি স্থাপত্যকর্ম যেমন পিরামিড অথবা মাউণ্ট রাশমোরে অবস্থিত ভাস্কর্য হয়তো থাকবে । তবে তাছাড়া বাকি সব, শেষ ।

  • কিছু বিশেষজ্ঞ বলেন যে ৫ মিলিয়ন বছরের মাথায় ওয়াই ক্রোমোসোম এর বিলুপ্তি ঘটবে ,পরিনামে এর সাথে সাথে বিলুপ্ত হবে পুরুষ জাতি !
  • ৫০ মিলিয়ন বছরের মধ্যে আফ্রিকা ,ইউরেশিয়ার সাথে মিশে যাবে যাতে বন্ধ হয়ে যাবে মেডিটেরিয়ান বেসিন ,একই সাথে তৈরি করবে হিমালয়ের মতন সুবিশাল এক নতুন পর্বতমালা । একই সাথে আন্টারটিকার বরফ চলে আসবে এবং গলবে উত্তরে, সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি করবে ৭৫ মিটারের কাছাকাছি ,তবে চিন্তিত হবেন না । আশা করা যায় এই সময়ের মধ্যেই আশপাশের গ্রহ গুলোতে মানুষের অধ্যুষিত হয়ে যাবে ।
  • ৬০ মিলিয়ন বছরের মাথায় পৃথিবীর কক্ষপথ অনিশ্চিত হয়ে পড়বে !

  • ২৫০ মিলিয়ন বছরে পৃথিবীর মহাদেশগুলো একটি অপরটির সাথে লেগে গিয়ে একটি সুপার কন্টিনেণ্ট তৈরী করবে ।
  • এখন থেকে ৮০০ মিলিয়ন বছর পরে, সি ফোর ফটোসিন্থেসিস আর সম্ভব হবে না, পরিণামে বিলীন হয়ে যাবে সব বহুকোষী প্রাণী ।

  • ২ বিলিয়ন বছরে গিয়ে পৃথিবীর কেন্দ্রস্থল ঠান্ডা হয়ে যাবে এবং গ্রহটির ঘূর্ণন বন্ধ হয়ে যাবে । আর ঘূর্ণন বন্ধ মানে হল চৌম্বক ক্ষেত্র বন্ধ । আর পৃথিবীর চৌম্বক ক্ষেত্র বন্ধ মানে সূর্যের আলো থেকে নিরাপত্তা শেষ । পৃথিবী পৃষ্ঠের তাপমাত্রা পৌছাবে ১৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসে । সকল প্রানের পরিসমাপ্তি ।

  • ৭ বিলিয়ন বছরে গিয়ে সূর্য তার সর্বোচ্চ ব্যাসার্ধ অর্জন করবে । অর্থাৎ এর বর্তমান আকৃতি থেকে ২৫৬ গুন বৃহত্তর । বুধ, শুক্র এবং সম্ভবত পৃথিবী ধ্বংস প্রাপ্ত হবে । আর সূর্য পরিণত হবে এর বর্তমান ভরের শতকরা ৫০ ভাগ ভরযুক্ত সাদা বামনে ।

  • ২০ বিলিয়ন বছর পরে , সমগ্র বিশ্বের পরিসমাপ্তির একটি সম্ভাবনা রয়েছে । বিশ্বের অবিরাম বিস্তৃতির কারণে সকল পদার্থ বিলীন হয়ে যাবে । সকল দূরত্বই তখন অসীমে পরিণত হবে ।
  • ১০০ ট্রিলিয়ন বছরের মাথায় মৃত্যু হবে সকল নক্ষতের । অবশেষে যা থাকবে তা হল সাদা বামন, নিউট্রন স্টার এবং ব্ল্যাক হোল । এবং অবশেষে ১০০ কুইন্টিলিয়ন বছরে এসে, সূর্য যদি আগেই পৃথিবীকে গিলে না ফেলে থাকে, সূর্যের চারিদিকে পৃথিবীর কক্ষপথের বিলুপ্তি ঘটবে এবং নিমজ্জিত হবে সূর্যের ভেতরে । এটাই এর পরিসমাপ্তি ।

Leave a Reply