পাওরুটি এবং ডিমের নাস্তা

পাওরুটি এবং ডিমের নাস্তা

আজকের রেসিপি’তে দেয়া হল সকালের নাস্তা বানানোর একটি সহজ কিন্তু বৈচিত্রময় উপায় ।

এজন্য আপনার যা লাগবে তা হল –
১ । কিউরিয়াস মাইন্ড ( এটি ছাড়া তো কিছু হবেনা ! )
২ । ডিম
৩ । গোল পাওরুটি
৪ । মুরগির মাংসের কয়েকটি নরম টুকরো
৫ । গোল মরিচের গুড়ো, বিট লবন

প্রণালী

প্রথমে আড়াই ইঞ্চি পুরুত্ব রেখে রুটি টিকে গোল গোল করে কাটুন । টুকরো গুলোর ঠিক মাঝখান দিয়ে কিছু সাদা রুটির অংশ সরিয়ে ফেলুন যেন এতে জায়গা তৈরি হয় । প্রান্ত ভাগের সব সাদা অংশ আবার তুলে ফেলবেননা । এরপর প্রথমে মুরগীর নরম,ছোট ছোট টুকরো গুলো বাদামি ও মচমচে করে ভেজে ফেলুন,এবং কিচেন টাওয়েলের রেখে দিন । এতে করে পেপারটি ভাজা মাংস থেকে তেল শুষে নেবে । হাল্কা লবন ও গোলমরিচ ছিটিয়ে দিতে ভুলবেন না ।

এরপর ফ্রাইং প্যানে অলিভ অয়েল ছিটিয়ে দিন । এবং মাঝারি আচ দিয়ে রুটির টুকরো টি এতে বসিয়ে দিন । এরপর একটি ডিম ভেঙে সাবধানে মাঝখানে করা খালি অংশে ঢেলে দিন, খেয়াল রাখবেন যেন কুসুমটা ফেটে না যায় । এরপর যদি রুটির উপরের অংশে আঙ্গুল দিয়ে হালকা চাপ দিয়ে রাখেন তবে নিচ দিয়ে ডিমের সাদা অংশ বেড়িয়ে আসার সুযোগ পাবেনা ।

এখন, উপরে পুনরায় সামান্য গোল মরিচ, বিট লবন ছিটিয়ে দিন এবং প্যানটি ঢেকে রাখুন কিছুক্ষণের জন্য । মিনিট খানেক পর রুটির সতর্কতার সাথে টুকরো উল্টিয়ে দিন । যদি ডিমের কুসুম নরম রাখতে চান তাহলে অপেক্ষাকৃত কম সময় আচে রাখুন, তা হলে ভাল ভাবে আচে দিন এবং উঠিয়ে মুরগীর ভাজা টুকরো গুলো এর উপর ছড়িয়ে দিয়ে পরিবেশন করুন ।

যেহেতু আগেই বলেছি সহজে রান্নার কথা ,তাই পুরো রেসিপিতে একটি জিনিস এড়িয়ে গিয়েছি যেটি যারা কিছুটা ঝামেলা করতে রাজী আছেন তাঁদের জন্য শেষে দিয়ে দিলাম । সুপার শপ গুলোতে ভাল পনিরের স্লাইস কিনতে পাওয়া যায়,আর এই স্লাইস গুলো ভাজার সময় উপরে রেখে দিলে পনির তাপে গলে গিয়ে বাড়তি ফ্লেভার আসবে রুটিতে ।