দেশপ্রেমের ভ্রম – মতামত সেকশন

দেশপ্রেমের ভ্রম - মতামত সেকশন

দেশপ্রেমের ভ্রম

আসলে দেশপ্রেম হচ্ছে একটি রাজনৈতিক শব্দ, একে সাধারণত রাজনৈতিক স্বার্থেই বেশি ব্যবহার করা হয়। এটি আসলে প্রপাগান্ডা বাস্তবায়নের একটি বড় টুল, যার নাম ভাষা। ব্রিটিশরা যখন আফ্রিকায় কলোনি তৈরি করে তখন মূলত সবার আগে যা করেছিল তা হল ভাষা শেখানো। কারন ভাষা না শিখলে আফ্রিকানরা তাদের আদেশ মানবে কিভাবে ?

আদালতে যখন কোন আদেশ জারী হয়, তার কোন মূল্যই থাকেনা যদি পুরো জাতি সেই ভাষা না বোঝে। আর এই ভাষার অন্যতম একটি গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক শব্দ হচ্ছে দেশপ্রেম। বিভিন্ন সাহিত্যের মাধ্যমে একে আরও তীব্রতা এবং আবেগ প্রদান করা হয়েছে যা বাস্তবতা বিবর্জিত হলেও এর প্রভাব অত্যন্ত বেশি এবং বিস্তৃত।

শুধু শব্দ টা নিয়ে আলোচনা করলেই এর ধোকাবাজীটা বের হয়ে যাবে। দেশ তৈরি হয়েছে কিছু মানূষের আলোচনা ও আইনের পরিপ্রেক্ষিতে, মানব সৃষ্ট বর্ডার দিয়ে। আর এই বর্ডার মানূষ ছাড়া বিশ্বের বাকিসব প্রাণী রিকগনাইজ করেনা। অর্থাৎ দেশ শব্দটিই ক্ষমতার অপব্যবহার।

ঠিক যেন মানূষ হয়ে মস্ত বড় ভূল করে ফেলেছেন তাই যেখানে জন্মেছেন তার চারপাশে কিছু ক্ষমতাশালী মানূষের তৈরি করা বৃত্তের বাইরে যেতে পারবেননা। যাবার চেস্টার করলে গুলি করে মেরে ফেলা হবে। চিন্তা করে দেখুন, একটু ভাবুনতো ব্যপারটা ?

পৃথিবীর সকল প্রাণী, পাখি যখন যেখানে ইচ্ছে চলে যেতে পারে, উড়ে যেতে পারে। কিন্তু মানুষ হয়ে কত বড় পাপ করে ফেলেছেন যে ইচ্ছে করলেই আপনি কোথাও যেতে পারবেননা, মানূষের অনুমতি লাগবে, অনুমতি পেতেও পারেন, নাও পেতে পারেন। মানব জীবনের কি পরিহাস !

এখন শব্দটার দিকে একটি নজর দেয়া যাক। দেশ এবং প্রেম, অর্থাৎ দেশের প্রতি ভালোবাসা। দেশ মানে কি ? মানূষ, ভূমি, গরু,ছাগল ও অন্যান্য প্রাণী। এখন শহরে যারা থাকেন তারা একটু পাশের বাড়িতে গিয়ে দেশপ্রেম দেখিয়ে আসুনতো, বলে আসুন এই জমি এই বাড়ি আমার, আমি একে ভালোবাসি। আপনার কপাল ভালো হলে বাড়িওয়ালার কানে যাবেনা কথাটা। এখন একবার চিন্তা করুন আপনি যে দেশেই বাস করুন, তার আসলে কতটুকু আপনার। আপনার বাড়ির দুই ব্লক পরে আরেকজনার জমি বাড়ির ব্যপারে আপনার যদি কোন মায়া না থাকে, পুরো দেশের প্রতি মায়া আসবে কোথা থেকে ?

মায়া তো আসবে, যদি আপনি ভোটে দাড়ান তখন। কারন তখন দেশ আপনাকে কোটিপতি হবার সূজোগ দিতে যাচ্ছে, ভালো তো বাসবেনই। কিন্তু যারা দিনে আনে দিনে খায় তার এই শব্দের খেলা নিয়ে ভাবে না, আর শিক্ষিত মানুষ হিসেবে আপনারও উচিত পুরো ব্যপারটা নিয়ে আরেকটু চিন্তাভাবনা করা। দেশপ্রেমের প্রয়োজন পরে যখন কোনো ক্ষমতাশালি ব্যক্তি চাইবে তার জন্য আপনি আপনার নিজের জীবন হুমকির মুখে ফেলবেন, বিরোধিদলের কাউকে ক্ষমতায় আনার জন্য নিজের জীবন বিসর্জন দিতে আপনাকে রাজী করানোর এই মহা ধোকাবাজির নামই দেশপ্রেম।

লেখকঃ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক